www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ
শিরোনাম:

দৈনিক চল্লিশ কোটি টাকার প্রাণিজ পণ্য বিক্রি

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারিদের সচিবের অভিনন্দন


 এগ্রিবার্তা ডেস্কঃ    ১৫ মে ২০২০, শুক্রবার, ১০:২৪   সমকালীন কৃষি  বিভাগ


মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব রওনক মাহমুদ গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ মে, ২০২০) মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন অধিদপ্তর ও সংস্থার প্রধানদের নিয়ে সাম্প্রতিক কার্যক্রম নিয়ে অনলাইন মিটিং করেন। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের চলমান ভ্রাম্যমাণ বাজারে প্রাণিজ পণ্যে তথা দুধ, ডিম, মাংস বিক্রয় ব্যবস্থার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং নিয়মিতভাবে গড়ে প্রতিদিন চল্লিশ (৪০) কোটি টাকার উপরে বিক্রয় হওয়ায় তিনি প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ দেন এবং করোনা ক্রান্তিকালিন সময়ে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারিদের নিরিলসভাবে কাজ করে যাওয়ার জন্য সকলের প্রতি শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

ভ্রাম্যমাণ বাজারে দৈনিক প্রায় আট (৮) কোটি টাকার মাছ বিক্রয় হওয়ায় মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককেও তিনি ধন্যবাদ জানান। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ভ্রাম্যমাণ বাজার সম্পর্কে তিনি বলেন, "আমি নিজে প্রতিদিন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে স্থাপিত মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের বিক্রয় তথ্য ও সামগ্রিক কার্যক্রম তদারকি করি।"

এসময় তিনি মৎস্য ও প্রাণিজ উৎপাদন যেনো কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হয় এবং কর্মকর্তা কর্মচারীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা যেনো বিপন্ন না হয় সেজন্য সামাজিক দুরত্ব বাজার রেখে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে সকল কার্যক্রম চালিয়ে যেতে বলেন। এছাড়াও যেসব জায়গায় বাহিরের মানুষের চলাচল বেশি সেখানে ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য জীবাণুনাশক টানেল বসানোর নির্দেশ প্রদান করেন। এরপরও যদি কেউ আক্রান্ত হন তবে সাথে সাথে তাকে জানাতে বলেন এবং আক্রান্ত ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ সহায়তার নিশ্চয়তা দেন। তিনি বলেন, "আক্রান্ত ব্যক্তির পাশে তিনি ও মন্ত্রনালয় সর্বদা থাকবেন।"

এ প্রসঙ্গে সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত টেকনাফের প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ডাঃ সাজ্জাদ হোসেনের সাথে তাঁর ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ এবং সার্বিক খোঁজখবর রাখার কথা নিশ্চিত করেছেন। উল্লেখ্য, ডাঃ সাজ্জাদ এখন করোনা থেকে পুরোপুরি সুস্থ ।

মিটিং এ তিনি সকল অগ্রাধিকারমূলক প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নে যেন না দেরি না হয় সে ব্যাপারে জোরদার ব্যবস্থা গ্রহন করতে বলেন এবং সকল কার্যকলাপের ব্যাপক প্রচারের জন্য উৎসাহ প্রদান করেন। পাশাপাশি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে এবং চলমান কার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।




  এ বিভাগের অন্যান্য