www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ
শিরোনাম:

সংসদ ভবন এলাকায় মন্ত্রী-এমপিদের বৃক্ষরোপণ


 এগ্রিবার্তা ডেস্কঃ    ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার, ৯:৪৫   সমকালীন কৃষি  বিভাগ


জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে সংসদ ভবন এলাকায় বৃক্ষরোপণ করছেন মন্ত্রী-এমপিরা। ধারাবাহিক এ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বৃক্ষের চারা রোপণ করেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, সংসদ সদস্য নুর মোহাম্মদ, মো. আয়েন উদ্দিন, রনজিত কুমার রায়, ছোট মনির, মো. ছানোয়ার হোসেন, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, শফিকুল ইসলাম শিমুল, অপরাজিতা হক, আঞ্জুম সুলতানা ও গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার।

বৃক্ষরোপণ শেষে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, মুজিববর্ষের আহ্বান তিনটি করে গাছ লাগান। আজ প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে গাছ লাগাতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। দূরদর্শী প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধরে রাখার পাশাপাশি সোনার বাংলাদেশকে আরও উন্নত করা এবং জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীকে তাৎপর্যময় করে রাখার জন্য বৃক্ষরোপণের ব্যাপক কর্মসূচি ঘোষণা করেন। সারাবিশ্বে পরিচিতি লাভ করেছে এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি। তিনি বলেন, বৃক্ষ আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে অক্সিজেন সরবরাহ করে, প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করে তাই প্রত্যেকের উচিত বনজ, ফলজ এবং ঔষধি তিনটি করে বৃক্ষরোপণ করা।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে সংসদ ভবন চত্বরে গাছ লাগাতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, জাতীয় সংসদে বিভিন্ন সময় সংসদ সদস্যরা আসেন, রাজনীতিবিদরা আসেন এবং রাজনৈতিক কারণে অথবা প্রাকৃতিক নিয়মে চলে যেতে হয়। এই গাছ লাগানোর ফলে সকলের একটি স্মৃতি রয়ে যাবে। পরিবেশের বিপর্যয় রোধে বৃক্ষরোপণ একটি বিশেষ মাধ্যম বলে প্রকৃতির দিকে তাকাতে হবে, প্রকৃতিকে ধরে রাখতে হবে। বৃক্ষরোপণের এ ধারাবাহিক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত সকলকে ধন্যবাদ।

বৃক্ষরোপণ শেষে সংসদ সদস্যরা শুধু সংসদ ভবন চত্বরেই নয়, প্রত্যেকের নির্বাচনী এলাকায় এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। দেশের প্রতিটি অঞ্চলে রাস্তায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ও সারাদেশের প্রতিটি সংসদীয় এলাকায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি চলমান রয়েছে।

তারা বলেন, প্রত্যেকেই নিজ নিজ এলাকায় বৃক্ষরোপণ করছেন এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার উদ্দেশে এই মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। সংসদ এলাকায় বৃক্ষরোপণের মাধ্যমে তাদের স্মৃতি ধরে রাখার সুযোগ করে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, চিফ হুইপসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তারা। তারা আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর শুভ জন্মদিনে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা দেশকে সবুজ সমারোহে পরিণত করার মন্ত্রে আবারও উজ্জীবিত হব।

উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সারাদেশে এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে জাতীয় সংসদে এ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিকে ধরে রাখার জন্য এক কোটি গাছের চারা রোপণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রত্যেক ব্যক্তি কমপক্ষে একটি করে ফলজ, বনজ ও ঔষধি মোট তিনটি গাছ রোপণ করবেন।




  এ বিভাগের অন্যান্য