সিএনজি চালকের শ্লীলতাহানির শিকার বাকৃবি শিক্ষার্থী

ক্যাম্পাস/
মুসাদ্দিকুল ইসলাম তানভীর, বাকৃবি প্রতিনিধি

(১ সপ্তাহ আগে) ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, রবিবার, ৯:৫৮ পূর্বাহ্ন

agribarta

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ক্যাম্পাসের মধ্যে সিএনজি চালকের শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছেন পশুপালন অনুষদের তৃতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থী। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিনা) আবাসিক এলাকা সংলগ্ম সড়কে ওই ঘটনা ঘটে।

ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানান, “শনিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল পশু পুষ্টি মাঠ গবেষণাগারে আমার ক্লাস ছিলো। সাড়ে বারোটার দিকে বিনার আবাসিক এলাকার সামনের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় এক সিএনজি চালক পিছন থেকে এসে অশালীনভাবে আমার গায়ে হাত দেয়। চালকের বয়স আনুমানিক ২০ থেকে ২৫ বছর হতে পারে। গায়ে জোব্বা ও মাথায় টুপি পরা ছিলো। আমার প্রায় দু-হাত সামনেই আমার দুজন বান্ধবী ছিলো। আমরা তখন ভয় পেয়ে সাহায্যের জন্যে চিৎকার করতে থাকি। একপর্যায়ে আমরা দৌড়াতে শুরু করি। কিছুক্ষণ পর পিছনে ফিরে তাকালে চালকটিকে সিএনজি নিয়ে চলে যেতে দেখি। এরপর আমি মানসিকভাবে ভীত হয়ে পড়লে আমাকে হলে নিয়ে আসে আমার বান্ধবী। আমার বান্ধবীদের মাধ্যমে বিষয়টি ক্লাসের অন্যান্যরা জানতে পারলে সিএনজিকে ধরার জন্যে প্রক্টর অফিসে যোগাযোগ করে।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায়শই এরকম ঘটনা ঘটে চলেছে। আজকের ঘটনা সকলের সামনে এসেছে কিন্তু এমন ঘটনা আরোও আছে যেগুলো ভয় বা লজ্জায় অপ্রকাশিত রয়ে গেছে। ওই রাস্তাটি অন্যান্য জায়গায় চেয়ে একটু ফাঁকা। আবার ওইদিক দিয়েই আমাদের ক্লাসে যেতে হয়। কিন্তু ওই রাস্তায় কোনো নিরাপত্তা কর্মী নিয়োজিত নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের এরকম সুনসান রাস্তাগুলোতে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা কর্মী প্রনয়ণ করা জরুরি।” এ সময় প্রশাসনের কাছে শিক্ষার্থীদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার জোর দাবিও জানান তারা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল ইসলাম বলেন, “আমরা সিসিটিভি ফুটেজ দেখে সিএনজিটির নাম্বার সংগ্রহ করেছি। সংশ্লিষ্ট সকল নিরাপত্তা বিভাগেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সিএনজিটি ট্র‍্যাক করার চেষ্টা করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরাপত্তা কর্মীর সংকট রয়েছে। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্যে নিরাপত্তা কর্মী সংখ্যা বাড়ানো জরুরি।”