মাঘ মাসের ফসলের জন্য কৃষি তথ্য সার্ভিসের পরামর্শ

কৃষি প্রযুক্তি /
এগ্রিবার্তা ডেস্ক

(১ সপ্তাহ আগে) ২১ জানুয়ারি ২০২৩, শনিবার, ৭:২৮ অপরাহ্ন

agribarta

শুরু হয়েছে মাঘ মাস। এ সময় ধান চাষসহ বিভিন্ন সবজি উৎপাদনের বিষয়ে কৃষকদের পরামর্শ দিয়েছে কৃষি তথ্য সার্ভিস।

বোরো ধান

ধানের চারা রোপণের ১৫-২০ দিন পর প্রথম কিস্তি, ৩০-৪০ দিন পর দ্বিতীয় কিস্তির ইউরিয়া সার উপরি প্রয়োগ করুন। বোরো ধানে অল্টারনেট ওয়েটিং ও ড্রায়িং (AWD) পদ্ধতিতে সেচ দিন। রোগ ও পোকা থেকে ধান গাছকে বাঁচাতে সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি প্রয়োগ করুন।

ক্ষেতে ডালপালা পুঁতে পাখি বসার ব্যবস্থা করুন। আলোর ফাঁদ ব্যবহার করে পোকা দমন করুন। রোগ ও পোকা দমনে অনুমোদিত বালাইনাশক ব্যবহার করুন।

গম

গমের জমিতে যেখানে ঘন চারা রয়েছে তা পাতলা করে দিন। গম গাছ থেকে শীষ বের হলে বা গম গাছের বয়স ৫৫-৬০ দিন হলে জরুরিভাবে গম ক্ষেতে সেচ দিন। ভালো ফলনের জন্য দানা গঠনের সময় আরেকবার সেচ দিন। গম ক্ষেতে ইঁদুর দমনের কাজটি সবাই মিলে করুন।

ভুট্টা

ভুট্টা ক্ষেতে গাছের গোঁড়ার মাটি তুলে দিন। গোঁড়ার মাটির সঙ্গে ইউরিয়া সার ভালো করে মিশিয়ে দিয়ে জমিতে সেচ দিন। গাছের নিচের দিকের মরা পাতা ভেঙে দিতে হবে।

আলু

আলু ফসলে নাবি ধসা রোগ দেখা দিতে পারে। সে কারণে প্রেয়িং শিডিউল মেনে চলুন। মড়ক রোগ দমনে দেরি না করে অনুমোদিত নিয়মিত ছত্রাকনাশক স্প্রে করুন। মড়ক লাগা জমিতে সেচ দেওয়া বন্ধ রাখুন।

আলু গাছের বয়স ৯০ দিন হলে মাটির সমান করে গাছ কেটে দিন এবং ১০ দিন পর সম্ভব হলে পটেটো ডিগার দিয়ে আলু তুলে ফেলুন। আলু তোলার পর ভালো করে শুকিয়ে বাছাই করুন এবং সংরক্ষণের ব্যবস্থা নিন।

তুলা

তুলা সংগ্রহের কাজ এ মাস থেকেই শুরু করতে হবে। শুরুতে ৫০ শতাংশ বোল ফাটলে প্রথমবার, বাকি ফলের ৩০ শতাংশ পরিপক্ব হলে দ্বিতীয়বার এবং অবশিষ্ট ফসল পরিপক্ব হলে শেষ অংশের তুলা সংগ্রহ করুন।

গাছ

শীতে গাছের গোঁড়ায় নিয়মিত সেচ দিন। গোঁড়ার মাটি আলগা করে দিন এবং আগাছামুক্ত রাখুন।

হপার পোকা দমনের জন্য আম গাছের মুকুল আসার ১০ দিনের মধ্যে ফুল ফোটার আগেই গাছের পাতা, মুকুল ও ডালপালায় ভালোভাবে ভিজিবো স্প্রে করুন। এক লিটার পানিতে দশমিক ৫০ মিলি ইমিডাক্লোপ্রিড গ্রুপের কীটনাশক এবং ২ গ্রাম ম্যানকোজেব জাতীয় ছত্রাকনাশক মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। আমের আকার মটর দানার মতো হলে গাছে দ্বিতীয়বার স্প্রে করুন। ফলগাছে স্প্রে করার জন্য ফুট স্প্রেয়ার ব্যবহার করুন।

উচ্চমূল্যের ফসল, যেমন ব্রোকলি, স্ট্রবেরি, ক্যাপসিকাম, তরমুজ এসব আবাদ করুন। স্বল্পকালীন ও উচ্চফলনশীল জাত নির্বাচন করুন। আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহার করুন।

বিস্তারিত তথ্যের জন্য উপজেলা কৃষি অফিস বা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা অথবা কৃষি কল সেন্টার ১৬১২৩ নম্বরে ফোন করে পরামর্শ নিন। আরও তথ্যের জন্য www.ais.gov.bd, www.dae.gov.bd সহ অন্যান্য কৃষি বিভাগের ওয়েবসাইট ব্যবহার করুন।