www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ

দেশী-বিদেশী পাখির কলতানে মুখর নড়াইলের পানিপাড়া গ্রাম


 এগ্রিবার্তা ডেস্ক    ২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার, ৯:৪০   প্রাণিসম্পদ বিভাগ


নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানার পানিপাড়া গ্রামের কৃষি পর্যটনকেন্দ্র অরুণিমা ইকো পার্কে ২০০১ সাল থেকে প্রতি বছর শীত মৌসুমে পরিযায়ী পাখির আগমন ঘটে। এ বছরও পরিযায়ী পাখির কলতানে মুখর হয়ে উঠেছে গ্রামটি। পাখি সংরক্ষিত এলাকা ঘোষণা করায় ১৫ বছর আগে থেকেই এলাকাটি পরিচিতি পায় পাখির গ্রাম নামে।

প্রতিদিন বিকালে বিভিন্ন এলাকা থেকে পাখিরা এসে বসতে থাকে এ পার্কে। রাত যত গভীর হয়, পাখির আগমন তত বাড়তে থাকে। সারা রাত পাখির কলকাকলিতে মুখর থাকে পুরো এলাকা। ভোর হলেই পাখিরা উড়ে যায় যার যার স্থানে। আবার বিকাল হলে চলে আসে গন্তব্যে।

প্রায় ৬৮ একর এলাকাজুড়ে গড়ে উঠেছে দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির পাখির অভয়ারণ্য। হাজার হাজার অতিথি পাখির কিচিরমিচির দেশী-বিদেশী ভ্রমণপিপাসুদের মনে জায়গা করে নিয়েছে। এলাকায় পর্যটক আসায় কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে কয়েকশ বেকার যুবকের।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, এলাকাজুড়ে দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির পাখির রাজত্ব। প্রজনন ঘটছে হাজার হাজার পাখির। ডিম থেকে ফুটছে বাচ্চা। বর্তমানে দেশের একমাত্র এই কৃষি পর্যটন কেন্দ্রটি পরিণত হয়েছে পাখির অভয়ারণ্যে।

ইকো পার্কের ম্যানেজার সাজিকুল ইসলাম বেল্টু বলেন, ২০০১ সাল থেকেই শুকনো মৌসুমে ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখিসহ দেশী পাখিরা আসে। এলাকাটি অভয়ারণ্য হওয়ায় ক্রমেই বাড়ছে পাখির সংখ্যা। আর নয়নাভিরাম এ সৌন্দর্য দেখতে প্রতিনিয়ত দূরদূরান্ত থেকে ছুটে আসছে অসংখ্য পাখিপ্রেমী ও বিনোদনপ্রিয় মানুষ।

পাশের জেলা গোপালগঞ্জ থেকে পাখি দেখতে আসা আমিনুল ইসলাম (রনি) বলেন, প্রতি বছরই তিনি ছেলেমেয়েদের নিয়ে পাখি দেখার জন্য এখানে আসেন। কৃষির জন্য যে প্রকৃতির কোনো বিকল্প নেই, তা এখানে না এলে অজানা রয়ে যাবে। এখানে শুধু পাখিই নয় বরং পাখিদের বাসস্থান হিসেবে রয়েছে নানা প্রজাতির ফলজ, বনজ ও ওষধি বৃক্ষ।

খুলনা জেলার পাখিপ্রেমী বাইয়েজিদ হোসেন বলেন, এত পাখি তিনি কখনো একসঙ্গে দেখেননি। চোখে না দেখলে বিশ্বাস হবে না এখানকার পাখির গল্প।

প্রতিনিয়ত দেশ-বিদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে শত শত বিনোদনপ্রিয় মানুষ ও পর্যটক আসছেন এ অরুণিমা ইকো পার্কে। উপভোগ করছেন প্রকৃতিকে, আবার ফিরে চলে যাচ্ছেন।

কৃষকদের নিয়ে কাজ করা স্থানীয় একটি এনজিওর নির্বাহী পরিচালক কাজী বাসাক বলেন, অতিথি পাখির আগমনের ফলে এলাকার মৎস্য চাষ ও বিভিন্ন ধরনের ফসল উৎপাদনের ক্ষেত্রে খুবই উপকার হয়।

কৃষি পর্যটনকেন্দ্র অরুণিমা ইকো পার্কের চেয়ারম্যান খবির উদ্দিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের একমাত্র কৃষি পর্যটনকেন্দ্র পরিণত হয়েছে পাখির অভয়ারণ্যে।




  এ বিভাগের অন্যান্য