www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ

ভোমরা স্থলবন্দরে ১১ মাসে দেড় হাজার কোটি টাকার গম আমদানি


 এগ্রিবার্তা ডেস্ক    ১৮ জুন ২০২২, শনিবার, ৮:৩৯   কৃষি ক্যারিয়ার বিভাগ


সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে গম আমদানি ব্যাপক হারে বেড়েছে। গত ২০২০-২১ অর্থবছরের তুলনায় চলতি অর্থবছর অন্তত পাঁচ গুণ আমদানি বেড়েছে কৃষিজাত পণ্যটির। আমদানিকৃত এসব গম দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে সম্প্রতি ভারত গম আমদানি রফতানি বন্ধ রাখায় গত মে মাসের এলসির অনুকূলে আমদানি করা হচ্ছে।

অন্যদিকে আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, দেশীয় বাজারে চাহিদা বেশি থাকায় পণ্যটির আমদানি বাড়ার পাশাপাশি দামও বেড়েছে।

ভোমরা শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব শাখা সূত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই-মে মাস পর্যন্ত এ স্থলবন্দর দিয়ে গম আমদানি হয়েছে পাঁচ লাখ ৪৫ হাজার ৭২৭ টন। এর আমদানি মূল্য ১ হাজার ৫১৮ কোটি ১৪ লাখ টাকা, যা গত অর্থবছরের এগারো মাসের তুলনায় কমপক্ষে পাঁচ গুণ বেশি। সূত্রটি আরো জানায়, গত অর্থবছরের জুলাই-মে মাস পর্যন্ত ভোমরা বন্দর দিয়ে গম আমদানি হয়েছিলো ১ লাখ ৪৭ হাজার ৪২৪ টন, যার আমদানি মূল্য ছিল ৩৯৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা।

ভোমরা স্থলবন্দরের গম আমদানিকারক হারু ঘোষ জানান, অন্য যেকোনো সময়ের তুলনায় চলতি অর্থবছরে গম আমদানি বেড়েছে। প্রতি মাসে গড় ২০০ থেকে ২৫০ ট্রাক গম আমদানি করেন তিনি। তবে সম্প্রতি ভারত সরকার গম রফতানি কমিয়ে দিয়েছেন বলে জানান।

তিনি বলেন, চলতি অর্থবছরের মে মাস পর্যন্ত যাদের এলসি খোলা ছিলো বর্তমান সেই সব ব্যবসায়ী বা আমদানিকারকরা গম আনতে পারছেন। গত অর্থবছরের তুলনায় চলতি বছর গমের বাজার দর খুবই চড়া যাচ্ছে। গত বছর এই সময় যে গম বাজার দর ছিলো কেজি প্রতি ২৬ থেকে ২৭ টাকা তা বর্তমান ৩৫ থেকে সাড়ে ৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা বাজারের গম ভাঙ্গানো মিল মুকন্দ ফ্লাওয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুকন্দ কুমার মজুমদার জানান, গমের দর বেড়েছে কেজি প্রতি ৭ থেকে ৮ করে। গত বছর এ সময় যে গম ২৭ থেকে ২৮ টাকা দরে কেনা যেত তা বর্তমান ৩৫ টাকার উপরে কিনতে হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, তার মিলে সপ্তাহে গমের চাহিদা রয়েছে ১২ থেকে ১৪ হাজার কেজি। এসব গম ভোমরা বন্দর থেকে আমদানি করে মিলের চাহিদা মেটান।

ভোমরা স্থলবন্দরের সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিশনের সভাপতি কাজি দিলওয়ার নওশাদ রাজু জানান, আপাতত গমের নতুন এসলি বন্ধ রয়েছে। তবে যতদুর জানা যাচ্ছে বাংলাদেশসহ আরো পাঁচটি দেশে শিগগিরি গম রফতানি শুরু করবে ভারত সরকার।

ভোমরা শুল্ক স্টেশনের দায়িত্বরত কাস্টমসের বিভাগীয় সহকারী কমিশনার আমীর মামুন জানন, চলতি অর্থবছরে গম আমদানি বেড়েছে ব্যাপক হারে। তবে এই কৃষি পণ্যটি আমদানি করলে সরকারের কোনো রাজস্ব আয় হয় না। এটি সম্পূর্ণ শুল্কমুক্ত।

এদিকে সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, চলতি ২০২১-২২ মৌসুমে সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলায় গম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে দুই হাজার ৫৩৫ টন। ওই লক্ষ্যমাত্রা সামনে নিয়ে জেলায় গম চাষ হয়েছে ৮১০ হেক্টর পরিমাণ জমিতে।

সাতক্ষীরার সদর উপজেলার বাদামতলা গ্রামের গম চাষী রফিকুল ইসলাম জানান, চলতি মৌসুমে তিন বিঘা পরিমাণ জমিতে গম চাষ করেছে। বিঘা প্রতি ১০ থেকে ১১ মণ গম উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নুরুল ইসলাম জানান, গম উৎপাদনে জেলার কৃষকরা আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। এর কারণ হিসেবে তিনি জানান, আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় ফসলটির উৎপাদন ভালো হচ্ছেনা।




  এ বিভাগের অন্যান্য