www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ

বাগেরহাটে জোয়ার ও বৃষ্টির পানিতে ৮ হাজার মৎস্য ঘের ক্ষতিগ্রস্ত


 এগ্রিবার্তা ডেস্ক    ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৮:১৭   কৃষি অর্থনীতি  বিভাগ


বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপ, অস্বাভাবিক জোয়ারের পানি ও টানা তিনদিনের বৃষ্টিতে বাগেরহাটে অন্তত আট হাজার মৎস্য ঘের ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে চাষীদের ৩ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া ঘেরের পাড়ে ও খেতে থাকা মৌসুমি সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বৃষ্টি ও পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে ক্ষতির পরিমাণ আরো বাড়বে বলে দাবি সংশ্লিষ্টদের।

জেলার বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে কয়েকদিন ধরে টানা বর্ষণ ও নদ-নদীতে জোয়ারে পানির উচ্চতা বৃদ্ধির ফলে বাগেরহাটের সদর, রামপাল, মোংলা, মোরেলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় হাজার হাজার মৎস্য ঘের তলিয়ে মাছ বের হয়ে গিয়েছে। এছাড়া পানি জমে সবজি গাছের শিকড় পচে গিয়েছে। পানি নেমে যাওয়ার পর শিকড় পচা গাছগুলো মারা যাবে। অনেক এলাকায় পানির নিচে তলিয়ে আছে আমন ধান। এ অবস্থায় চরম ভোগান্তি ও আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন সবজি ও মৎস্য চাষীরা।

সদর উপজেলার মাঝিডাঙ্গা এলাকার চিংড়ি চাষী মুন্না শেখ বলেন, জোয়ারের পানিতে গ্রাম রক্ষা বাঁধ ভেঙে আমাদের এলাকা প্লাবিত হয়েছে। আমার দুই বিঘা ঘের তলিয়ে বাগদা ও গলদা চিংড়ি বেরিয়ে গিয়েছে। এতে আমার লক্ষাধিক টাকা ক্ষতি হয়েছে।

মোরেলগঞ্জ উপজেলার ফুলহাতা গ্রামের রাকিব খান বলেন, ঝড়-জলোচ্ছ্বাস এলেই আমাদের ক্ষতি হয়। ধান ও মাছ চাষ করে এলাকার মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে। এবারের পানিতে যেমন আমাদের ঘেরের মাছ চলে গিয়েছে, তেমনি আমনের খেতও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বাগেরহাট জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম রাসেল বলেন, মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের তথ্য অনুযায়ী গতকাল দুপুর পর্যন্ত বাগেরহাটের বিভিন্ন উপজেলায় আট হাজার মৎস্য ঘের ও পুকুর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।




  এ বিভাগের অন্যান্য