www.agribarta.com:: কৃষকের চোখে বাংলাদেশ

পানির অপচয় রোধ করতে পারে উন্নতমানের ওয়াটার ট্যাপ


 এগ্রিবার্তা ডেস্ক    ১০ অক্টোবর ২০২২, সোমবার, ৮:০৯   কৃষি প্রযুক্তি  বিভাগ


আশঙ্কাজনক হারে কমছে দেশের ভূগর্ভস্থ পানির স্তর। এর অন্যতম একটি কারণ পানির অপচয়। কখনো ইচ্ছাকৃতভাবে মানুষ অপচয় করে আবার কখনো নিজের অজান্তেই প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত পানি ব্যবহার করে। এক্ষেত্রে দায়ী অনুন্নত মানের পানির ট্যাপ। পানির প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্রকে বলা হয় ফসেট বা ট্যাপ। ত্রুটিপূর্ণ ফসেট থেকে ফোঁটা ফোঁটা পানি পড়তে দেখা যায়। ইউনাইটেড স্টেটস এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন এজেন্সির তথ্যানুযায়ী, একটি ত্রুটিপূর্ণ ফসেট থেকে প্রতি সেকেন্ডে এক ফোঁটা হারে পানি পড়তে থাকলে তা থেকে বছরে প্রায় তিন হাজার গ্যালন পানির অপচয় হয়, যা দিয়ে একজন মানুষের প্রায় ১৮০ বার গোসল করা সম্ভব। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কিচেন ও বাথরুমের টাইলিং, প্লাম্বিং এবং ফিটিংয়ের কাজে সৌন্দর্যের বিষয়টাকেই বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। সবাই প্রথমে চিন্তা করেন কীভাবে বাথরুমকে দেখতে আরো সুন্দর করে তোলা যায়। তখন অন্যান্য সামগ্রীর পাশাপাশি ওয়াটার ফসেটগুলোও (পানির ট্যাপ, শাওয়ার হেড ইত্যাদি) কেনা হয় শুধু বাহ্যিক সৌন্দর্যের ভিত্তিতে। কিন্তু শঙ্কার বিষয় হলো গুণগত মান ঠিক না থাকলে পানির ট্যাপের কারণে অতিরিক্ত পানির খরচ হতে পারে। ভালো ওয়াটার ফসেট বাথরুমের সৌন্দর্য বৃদ্ধি এবং ব্যবহারের সুবিধার পাশাপাশি পানির অপচয় রোধেও ভূমিকা রাখে। ভার্জিন ব্রাশ দিয়ে তৈরি ওয়াটার ফসেট খুবই মজবুত ও টেকসই হয়। এছাড়া ভার্জিন ব্রাশ ব্যবহারের ফলে আর সিসার মতো বিষাক্ত ধাতু ব্যবহারের প্রয়োজন হয় না। তাই এ ফসেট দেহ ও পরিবেশের কোনো দূষণ করে না। এছাড়া গরম-ঠাণ্ডা কিংবা লবণাক্ত পানিতে এর কোনো ক্ষতি হয় না এবং এর ইলেকট্রোপ্লেটিং দীর্ঘস্থায়ী হওয়ায় এটি টেকসই হয়ে থাকে।

দেশের বাজারে সাধারণ ওয়াটার ফসেট এবং শাওয়ার হেডের একটি অংশ ইন্টারন্যাশনাল ম্যানুফ্যাকচারিং স্ট্যান্ডার্ডস পুরোপুরি মেনে উত্পন্ন নয়। এ কারণে কিছুদিন পরপর নষ্ট হওয়ার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়। ফসেটের মধ্যে তিন লেয়ার ইলেকট্রোপ্লেটিং এবং সঠিক পুরুত্বের পিভিডি কোটিংযুক্ত ওয়াটার ফসেট সহজে ক্ষয় হয় না। রঙ ও উজ্জ্বলতাও টিকে থাকে লম্বা সময় ধরে। এছাড়া তাপ ও রাসায়নিক ক্ষয় রোধ করে কার্যকরভাবে। তাই মরিচা পড়ে ফসেট জ্যাম অথবা লিক হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। বর্তমানে বাংলাদেশে পানির ট্যাপ বা ফসেটের বাজার প্রায় ১২৫ কোটি ৪৪ লাখ টাকার।

ওয়াটার ফসেটের কার্ট্রিজ গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এটি ঠাণ্ডা ও গরম পানির মিশ্রণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং ফসেটের হ্যান্ডেল গরম হয়ে যাওয়া থেকে রোধ করে। বর্তমানে উন্নত মানের ফসেট কার্ট্রিজ হিসেবে হাঙ্গেরির কেরক্স সিরামিক কার্ট্রিজ বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়। তাই ওয়াটার ফসেট কেনার সময় কেরক্স কার্ট্রিজযুক্ত ফসেট বেছে নেয়া যেতে পারে।

ওয়াটার ফসেটের নলের মুখের আরেকটি যন্ত্রাংশ হলো অ্যারেটর, যা পানি প্রবাহকে আরামদায়ক এবং পানি ছিটে আসা রোধ করে। বর্তমানে বিশ্বের ১ নম্বর অ্যারেটর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি নিওপার্ল-ইউএসএ। টেকসই, নিখুঁত ও দীর্ঘস্থায়িত্বের জন্য বিশ্বব্যাপী ফসেট বাজারে নিওপার্ল অ্যারেটরের বিশেষ সুনাম আছে। তাই টাইলস, স্যানিটারিওয়্যার এবং বাথওয়্যার পছন্দ করার সময় শুধু সৌন্দর্যই নয়, তাদের গুণগত মানের ব্যাপারেও গুরুত্ব দেয়া জরুরি।




  এ বিভাগের অন্যান্য